রাজশাহীতে “হোটেল ওয়েলকাম” আবাসিক হোটেলে রমরমা দেহ-ব্যাবসা, প্রশাসনের নিরব ভূমিকা

0
17

ডেস্ক রিপোর্ট

বৃহত্তর রাজশাহী নগরীর আনাচে কানাচে গড়ে উঠেছে শতাধিক আবাসিক হোটেল। আর এইসব আবাসিক হোটেলের নামে চলছে, রমরমা দেহ ব্যাবসা। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ” হোটেল ওয়েলকাম” দিনের পর দিন এক শ্রেণীর অসাধু পুলিশ কর্মকর্তাদের  সহায়তায়  কিছু নারী দেহব্যাবসায়ী আবাসিক হোটেল মালিকেরা প্রকাশ্য দিবালোকে এই দেহ ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছেন।

“হোটেল ওয়েলকাম ” আবাসিক এর ম্যানেজার মো. মাসুদ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে মেয়েদের কে নানান প্রলোভন দেখিয়ে তাদেরকে দিয়ে দেহ ব্যাবসা করতে বাধ্য করান। এছাড়াও এই মাসুদ মিয়া  তাদের ইয়াবা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ইয়াবা সরবরাহ করে হোটেলের মধ্যেই গড়ে তুলেছেন মাদকের আখড়া।

প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, রাজশাহী মহানগরীর স্বর্ণ পট্টি এলাকায়  জেবা জুয়েলার্স ও শাহিনা জুয়েলার্সের সংলগ্ন আবাসিক হোটেল ” হোটেল ওয়েলকাম ” অবস্থিত। প্রতিদিন এই হোটেলে প্রচুর যুবক যুবতী আসে মাদক সেবনের জন্য অথবা দেহভোগ করার জন্য। কিন্তু প্রকাশ্য দিনে দুপুরে থানা পুলিশ ও প্রশাসনের নাকের ডগায় থেকে কিভাবে এই অনৈতিক কর্মকান্ড চলে সেটা আমাদের বুঝে আসে না।

তাই বাংলাদেশের সর্বচ্চো প্রশাসনের নিকট আমারদের দাবি থাকবে যাতে করে অতিবিলম্বে এই আবাসিক হোটেল গুলোর বিরুদ্ধে ব্যাবস্হা নেয়া হয়। জেনে রাখা ভালো, বিগত দিনগুলোতে ম্যাজিস্ট্রিট অভিযান চালিয়ে ও কোন প্রকার অনৈতিক কর্মকান্ড ধরতে পারেন নি কারণ হচ্ছে সেখানকার কিছু ঘুষখোর, অসাধু থানা পুলিশ ও প্রশাসনের কর্মকর্তা আছে,, যারা ম্যাজিস্ট্রিট যাওয়ার আগেই হোটেল মালিকদের জানিয়ে দেন, যার কারণে ম্যাজিস্ট্রিটের অভিযান ফলপ্রসূত হয় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here