লালমনিরহাটে তিস্তা ব্রীজ দেখানোর কথা বলে তরুনীকে গণধর্ষণ! আটক-২

0
38
ডেস্ক রিপোর্ট – আলোকিত স্বদেশ

লালমনিরহাটে তিস্তা ব্রীজ দেখানোর কথা বলে তরুণীকে গণধর্ষণের খবর পাওয়া গেছে । গণধর্ষণের ঘটনায় ২ ধর্ষককে আটক করেছেন পুলিশ।

প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়- লালমনিরহাটের অদূরে তিস্তা ব্রীজ সংলগ্ন টোলপ্লাজার আফজালনগর  এলাকায় এক তরুণী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে । গত ১৪ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার আনুমানিক দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে তিস্তা ব্রীজের টোলপ্লাজা এলাকার রিপন মিয়ার গোডাউনে এই গণধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে।

খবর নিয়ে জানা যায়- নির্মল চন্দ্র রায় (২৮) নামের এক যুবক তিস্তা ব্রীজ দেখানোর কথা বলে গণধর্ষণের শিকার ঐ তরুণীকে মোবাইল ফোনে ডেকে আনেন। ঐ তরুণী নির্মল চন্দ্র রায়ের প্রতিবেশি হওয়ায় বিশ্বাস করে তিস্তা দেখার জন্য আসেন। পরে নির্মল চন্দ্র রায় (২৮) এবং আতিকুল ইসলাম (২৫) সহ অজ্ঞাত কয়েকজন যুবক মিলে টোলপ্লাজা সংলগ্ন রিপনের গোডাউনে নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন।

গোপন সূত্রে সংবাদ পেয়ে লালমনিরহাট থানার পুলিশ ঘটনাস্হল থেকে নির্মল চন্দ্র রায় ও আতিকুল ইসলাম নামের দুই যুবককে আটক করেন। পুলিশের কাছে আটক নির্মল চন্দ্রের বাড়ি কুড়িগ্রাম জেলার রাজার হাট উপজেলার ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম দেবত্তোর এলাকায়। তার পিতার নাম ত্রিপদ রায় এবং ধর্ষক আতিকুল ইসলামের বাড়ি লালমনিরহাট সদর উপজেলার গোকুন্ডা ইউনিয়নের পূর্ব দালালপাড়া এলাকায়। আতিকুল ইসলামের পিতার নাম তৈয়ব আলী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্হানীয়রা জানান- গোডাউন মালিক রিপন একজন চিহ্নিত মাদক ব্যাবসায়ী। এছাড়াও সে নানা রকম অপকর্মের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন। লালমনিরহাট সদর থানার ওসি শাহআলম আমাদেরকে বলেন- তিস্তা ব্রীজ সংলগ্ন টোলপ্লাজা এলাকায় জনৈক রিপন মিয়ার গোডাউনে তরুণীকে গণধর্ষণের সংবাদ আমরা গোপন সূত্রে জানতে পেয়ে দ্রুত সেখানে পুলিশ পাঠিয়ে দেই এবং ঘটনাস্থল থেকে ২ যুবককে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি।

তিনি আরো বলেন- ভূক্তভোগী ঐ তরণীকে উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে এবং তাকে জিজ্ঞেসাবাদ পর জানা যায়- তিস্তা টোলপ্লাজার আফজালনগর এলাকার সেকেন্দার আলীর ছেলে রিপন সরকারের(৩৫) গোডাউনে তার উপস্থিত তে ঐ তরণীকে গণধর্ষণ করেন।

পুলিশ আরো জানান – প্রাথমিক ভাবে আমরা তরণীর দেয়া তথ্য অনুযায়ী পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখছি এবং ভুক্তভোগী তরুণীর পরিবারের লোকজনের নিকট সংবাদ পাঠিয়েছি। তবে এ বিষয়ে লালমনিরহাট থানায় একটি গণধর্ষণ মামলার প্রস্তুুতি চলছে।

তিস্তা ব্রীজ সংলগ্ন টোলপ্লাজা এলাকায় তরণী গণধর্ষণের বিষয়টি নিয়ে লালমনিরহাট জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এর সার্কেল মারুফা জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আমাদেরকে বলেন- আমি ভুক্তভোগী তরুণীর সঙ্গে কথা বলেছি। তার দেয়া বিভিন্ন তথ্য ও কথা অনুযায়ী পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে, এছাড়াও তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সার্কেল মারুফা জামান আরো বলেন-এই গণধর্ষণ ঘটনায় একটি ধর্ষণ মামলার প্রস্তুতি চলছে। এই ন্যাক্কারজনক ধর্ষণ ঘটনায় কাউকে ছাড়া দেয়া হবে না। জড়িতদের প্রত্যেকে দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here